বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:০৪ পূর্বাহ্ন

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে পঞ্চগড়ের নৌকাডুবির খবর

এপ্লাস অনলাইন
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২

পঞ্চগড়ের বোদায় নৌকাডুবির ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত অন্তত ৬৪ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মর্মান্তিক এ ঘটনায় এখনও ১৪ জনের বেশি মানুষ নিখোঁজ রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। রবিবার উপজেলার মারেয়া বামনহাট ইউনিয়নে দুর্গাপূজার মহালয়া অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। বাংলাদেশের গণমাধ্যমের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমও এ নৌকাডুবির খবর গুরুত্ব ‍দিয়ে প্রচার করছে।

 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নৌকাডুবির ঘটনায় অতিরিক্ত যাত্রী বহন করাকে দায়ী করেছেন সরকারি কর্মকর্তারা। সংবাদমাধ্যমটি বলছে, ২০১৫ সালের পর দেশে এ নৌকাডুবির ঘটনায়ই সবচেয়ে বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিবেদনে বাংলাদেশে বিভিন্ন সময় নৌদুর্ঘটনায় মৃত্যুর পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে।

 

যুক্তরাজ্যভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর বাংলাদেশে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বহনকারী একটি নৌকা ডুবে মৃতের সংখ্যা মঙ্গলবার ৬১ জনে পৌঁছেছে। দুর্ঘটনার দুই দিন পরও অনেক যাত্রী এখনও নিখোঁজ রয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা এবং নিখোঁজদের স্বজনরা নদীর তীরে জড়ো হয়েছেন। উদ্ধারকারীরা মরদেহের সন্ধান করছেন।

 

নৌকাডুবির ঘটনায় হতাহতের খবর উল্লেখ করে ভারতের সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস লিখেছে, মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের হাজার হাজার হিন্দু প্রতিবছর বিখ্যাত বোদেশ্বরী মন্দিরে যান। দেশটিতে রবিবার দুর্গাপূজা ‍শুরু হবে। গত ডিসেম্বরে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে একটি তিনতলা লঞ্চে আগুন লেগে প্রায় ৪০ জন নিহত হন।

 

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে রবিবার হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বহনকারী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ২৫ জন নিহত এবং কয়েক ডজন মানুষ নিখোঁজ হয়েছে। একজন স্থানীয় কর্মকর্তা বলেছেন, এক বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে এটি সবচেয়ে মর্মান্তিক নৌদুর্ঘটনা।

 

সৌদি আরবভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তরাঞ্চলীয় শহর বোদার কাছে এ ঘটনা ঘটেছে। এটি দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে এ বছরের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী নৌদুর্ঘনা। বাংলাদেশে প্রায়ই পুরোনো নৌকায় অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে পারাপার করা হয়। নিহতদের মধ্যে ১৭ জন শিশু ছিল। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভিডিও ফুটেজ থেকে বোঝা যাচ্ছে, কয়েকজনের বয়স চার বছরের মতো।

 

পুলিশ জানিয়েছে, বোদেশ্বরী মন্দিরে মহালয়া উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এবারও ধর্মসভার আয়োজন করা হয়। রবিবার দুপুরের দিকে ওই সভায় যোগ দিতে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা নৌকায় নদী পার হচ্ছিলেন। তবে ৫০ থেকে ৬০ জনের ধারণক্ষমতার নৌকাটিতে দেড় শতাধিক যাত্রী ছিল। অতিরিক্ত যাত্রীর কারণে নদীর মাঝপথে নৌকাটি ডুবে যায়। অনেকে সাঁতার জানায় তীরে আসতে পারলেও সাঁতার না জানারা বিশেষ করে নারী ও শিশুরা ডুবে যায়। ধারণা করা হচ্ছে, স্রোতের কারণে অনেক লাশ ভেসে গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!