মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্প: মৃতের সংখ্যা ২৩শ ছাড়িয়েছে রংপুরে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিত জাপা চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই মিত্থুকের দল হলো বিএনপি, মিথ্যাচারই তাদের সম্পদ: মির্জা আজম ‘সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত গন আন্দোলন চলবে’ সীমান্তে তারকাঁটারের বেড়া নির্মাণের চেষ্টা বিএসএফের,বিজিবির বাধায় দুই বাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা ‘২৭ বছরের ডিউটিকালে রংপুরে আমি তিনবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গাড়িতে বহন করেছিলাম’ ফেসবুক পোস্টে হা হা রিঅ্যাক্ট দেওয়ায় কলেজ ক্যাম্পাসে বন্ধুকে ছুরিকাঘাত শপথ নিলেন নব নির্বাচিত রংপুর সিটি মেয়র মোস্তফা ও কাউন্সিলররা পাকিস্তানে মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ৩২

বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশ: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদকের নাম:
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশ। এখানে সব ধর্মের মানুষ সমান সুযোগ-সুবিধা নিয়ে চলবে।

বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) বিকেলে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই দেশের মাটিতে হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রিষ্টান সকলে একসাথে বাস করবে এবং কারণ মুক্তিযুদ্ধে সব ধর্মের লোক রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা এনেছে। আমরা মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ তাই বলে অন্য ধর্মাবলন্ধীদের অবহেলার চোখে দেখবো, তা নয়। সবাই সমানভাবে ধর্ম পালন করবে। যার যার ধর্ম পালনে সকলের স্বাধীনতা থাকবে। আমরা সেই চেতনায় বিশ্বাস করি। ইসলামও সেই শিক্ষা আমাদের দিয়ে থাকে।

প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরে বলেন, ‘১৯৯৬ সালে ২১ বছর পর মানুষ উপলব্ধি করল সরকার জনগণের সেবক হতে পারে, জনগণের জন্য কাজ করতে পারে। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা আবার সেই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখি।’

আওয়ামী লীগ সরকার দেশকে কেন এগিয়ে নিয়ে যেতে পারছে এর ব্যাখ্যা দিয়ে দলটির সভাপতি বলেন, ‘জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা করতে পারছি বলেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। ভিক্ষুক জাতি হিসেবে আমরা থাকতে চাই না। আমরা নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই।’

এ সময় তিনি জানান, ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত হবে। এখন ৯৯ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে, মুজিব বর্ষেই দেশের শতভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

নেতাকর্মীদের জনগণের পাশে দাঁড়ানোর তাগিদ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, মানুষের সেবাই আওয়ামী লীগের কাজ। করোনাকালেও আমাদের নেতাকর্মীরা মানুষে পাশে দাঁড়িয়েছে। এতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আমাদের অনেক নেতাকর্মী মারাও গেছেন। এ সময় তিনি মারা যাওয়া নেতাকর্মীদের আত্মার শান্তি কামনা করেন।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দলটির প্রধান বলেন, ‘সংগঠনটাকে শক্তিশালী করতে হবে। পঁচাত্তরের পর যে নামটি মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল, আজ আপনারা জানেন ইউনেস্কো বঙ্গবন্ধুর নামে পুরস্কার ঘোষণা করেছে। মুজিব বর্ষে এটা বাঙালি জাতির জন্য বড় উপহার।’

করোনা নামক বন্দিত্ব থেকে বিশ্ববাসী মুক্তি পাবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের দেশেও ভ্যাকসিন আসার ব্যবস্থা হয়েছে। ইতিমধ্যে চুক্তি হয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনও হয়েছে। তারপরও সবচেয়ে বড় সুরক্ষা মাস্ক, হাত ধোয়া, দূরত্ব বজায় রাখা। ঘোরাঘুরি কম করা। আপনারা সবাই স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিয়ে চলবেন। আপনাদের সুস্থ থাকা সংগঠন ও দেশের মানুষের জন্য জরুরি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!