মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে পঞ্চগড়ের নৌকাডুবির খবর পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি ট্রাজেডি: অর্ধশত মরদেহ উদ্ধার বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন : বেরোবি উপাচার্য স্বজনদের আহাজারিতে ভারি করতোয়ার পাড় পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি: দিনাজপুরের পুনর্ভব নদীতে ভেসে এলো ৮ জনের লাশ করতোয়ার পাড়ে দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি, মৃত্যু বেড়ে ৩৯ পঞ্চগড়ে মন্দিরে যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে শিশুসহ ২৪ জনের মৃত্যু হিজাব ইস্যুতে উত্তাল ইরান: নারীসহ ৭০০ বিক্ষোভকারী গ্রেফতার, নিহত ৩৫ শারদীয় দুর্গাপূজা: হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী পারাপার বেড়েছে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য, বেরোবি শিক্ষার্থী আটক

যে কারণে বাড়লো বাংলাদেশিদের হজের খরচ

এপ্লাস অনলাইন
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২
চলতি বছর যারা হজে যেতে চান, তাদের জন্য হজ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার, যাতে খরচ ১ লাখ টাকা বাড়িয়ে সর্বনিম্ন খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে সৌদি রিয়ালের বিনিময় হার বেড়ে যাওয়াসহ মোয়াচ্ছাছার খরচ দ্বিগুণ এবং বাড়ি ভাড়া বেড়ে যাওয়া হজের খরচ বৃদ্ধির প্রধান কারণ।
তবে হজ এজেন্সি মালিকরা জানিয়েছেন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও ভারতসহ বিভিন্ন দেশ হজযাত্রীদের জন্য ভর্তুকি দেওয়ায় তাদের হজের খরচ তুলনামূলকভাবে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক কম।
ইতোমধ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তিন কর্মকর্তাকে মক্কা, মদিনা ও জেদ্দাতে মৌসুমি হজ অফিসার হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (উন্নয়ন) মো. শাখাওয়াত হোসেনকে তিন মাসের জন্য মদিনায়, উপসচিব (হজ) মোহাম্মদ মাহবুব আলমকে ৪ মাসের জন্য জেদ্দায় ও সিনিয়র সহকারী সচিব এসএম মনিরুজ্জামানকে ৪ মাসের জন্য মক্কায় মৌসুমি হজ অফিসার পদে প্রেষণে নিয়োগ দিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
তারা সৌদি আরবে হজযাত্রীদের সার্বিক সহায়তা করবেন। বিশেষ করে কোনো হজযাত্রী অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে নেওয়া এবং মারা গেলে দাফনের ব্যবস্থা করাসহ সৌদি আরবে নিযুক্ত কাউন্সিলরের সরাসরি তত্ত্বাবধানে কাজ করবেন বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার ৯ জুলাই হজ হতে পারে। এবার বাংলাদেশ থেকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার জন আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনার ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন হজে যেতে পারবেন। সরকারিভাবে হজে যেতে প্রথম প্যাকেজে এবার খরচ হবে ৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ টাকা। আর দ্বিতীয় প্যাকেজের খরচ ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা। এ ছাড়া বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় কোরবানির খরচ ছাড়া হজ প্যাকেজের খরচ পড়বে ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭৪৪ টাকা। করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর হজের কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এর আগে ২০২০ সালে ঘোষিত হজ প্যাকেজ-১ ছিল ৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা, প্যাকেজ-২ ছিল ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং প্যাকেজ-৩ ছিল ৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা।
২০২০ সালে ৩ হাজার ৪৫৭ জন ব্যক্তি সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন। এর মধ্যে ৮৫৩ জন তাদের নিবন্ধন বাতিল করে টাকা ফেরত নিয়েছেন। ফলে বর্তমানে নিবন্ধিত রয়েছেন দুই হাজার ৬০৪ জন। অন্যদিকে একই বছর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন ৬১ হাজার ১৪২ জন। এর মধ্যে ৯ হাজার ২৭৯ জন তাদের নিবন্ধন বাতিল করে টাকা ফেরত নিয়েছেন। বর্তমানে নিবন্ধিত রয়েছেন ৫১ হাজার ৮৬৩ জন। ফলে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে বর্তমানে নিবন্ধন করা আছে ৫৪ হাজার ৪৬৭ জনের। এ ছাড়া সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে আরও ২ লাখ ৩ হাজার জনের প্রাক-নিবন্ধন করা রয়েছে বলে জানিয়েছেন হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম।
তিনি বলেন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রত্যেক হজযাত্রীকে হজ প্যাকেজের টাকা ১৮ মের মধ্যে এজেন্সির ব্যাংক হিসাবে জমা দিতে হবে বা এজেন্সির অফিসে জমা দিয়ে টাকার রশিদ (মানি রিসিপ্ট) নিতে হবে। হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন জানান, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও ভারতসহ বিভিন্ন দেশ হজযাত্রীদের জন্য ভর্তুকি দেয়। এ কারণে সেসব দেশের হজের খরচ তুলনামূলকভাবে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক কম।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ চাইলে হজযাত্রীদের টিকেটের ওপর ভর্তুকি দিতে পারত। তাহলে খরচ কিছুটা হলেও কমত। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান জানান, হজ প্যাকেজের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পর্বে ব্যয় বাড়েনি। ২০২০ সালে সৌদি রিয়ালের বিনিময় হার ছিল ২৩ টাকা। আজ এই হারের পরিমাণ ২৪ টাকা ৩০ পয়সা। এটিও প্যাকেজ মূল্যবৃদ্ধির অন্যতম কারণ। এ ছাড়া সৌদি আরব পর্বে সব খাতের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট ও সার্ভিস চার্জ কর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মোয়াচ্ছাছার খরচ দ্বিগুণ হয়েছে। বাড়ি ভাড়া বেড়েছে। প্যাকেজ মূল্যবৃদ্ধির জন্য এ কারণগুলো দায়ী।
কাল ১৬ মে থেকে শুরু হচ্ছে হজযাত্রী নিবন্ধন যা চলবে তিন দিন ধরে। ১৬ মে থেকে শুরু হতে যাওয়া নিবন্ধনে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ২০২০ সালে নিবন্ধিত থাকাদের সঙ্গে প্রাক-নিবন্ধিতদের মধ্যে ২৫ হাজার ৯২৪ সিরিয়াল পর্যন্ত নিবন্ধনের সুযোগ পাবেন। তবে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় শুধু আগের নিবন্ধিতদের চূড়ান্ত নিবন্ধনের জন্য বলা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে নিবন্ধনের জন্য হজযাত্রীদের ১৮ মে পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে যারা নিবন্ধন করবেন না তাদের নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, যদি কোনো কোটা খালি থাকে, তাহলে অবশিষ্ট কোটা পূরণের জন্য সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রাক-নিবন্ধনের ক্রম অনুসারে হজ পরিচালকের অনুমোদনে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নিবন্ধন করতে পারবেন। ২০২০ সালে যেসব নিবন্ধিত হজযাত্রী প্যাকেজ স্থানান্তরের মাধ্যমে ২০২২ সালে নিবন্ধন চূড়ান্ত করবেন না বা হজে যেতে পারবেন না, তাদের হজ নিবন্ধন বাতিল হবে এবং তারা বিধি মোতাবেক দেওয়া অর্থ ফেরত পাবেন।
অন্যদিকে ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা ৩ জন করে প্রতিনিধিকে সরকারি খরচে পবিত্র হজ পালনের জন্য সৌদি আরবে পাঠানোর দাবি জানালেও দুজন করে পাঠানোর সুযোগ দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার সময় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, সংসদীয় কমিটির সদস্যরা দুজন করে প্রতিনিধি পাঠাতে পারবেন। এ বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সংসদীয় কমিটির সভাপতি রুহুল আমীন মাদানী।
ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানসহ ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য ১০ জন। প্রত্যেকের ২ জন প্রতিনিধিকে হজে পাঠাতে হলে কমিটির সদস্যদের সুপারিশে মোট ২০ জনকে হজে পাঠাতে হবে। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে জনপ্রতি ৪ লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকা থেকে ৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ টাকা খরচ হবে। এর আগে ২০১৯ সালে সংসদীয় কমিটির প্রত্যেক সদস্যের সুপারিশে পাঁচজন করে সরকারি খরচে হজে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে গত দুই বছর বাংলাদেশ থেকে কেউ হজে যাওয়ার সুযোগ পাননি বলে কমিটির সভাপতি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!