সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:২৮ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
মেহেদি ম্যাজিকে বাংলাদেশের রুদ্ধশ্বাস জয় ”আর্জেন্টিনার সমর্থকরা পতাকার চুরির মিথ্যা অভিযোগে আমাকে পিটিয়েছে” নকল ধরা পড়ায় তৃতীয় তলা থেকে লাফিয়ে ছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা ভোট চুরি করে খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসেছিলেন: চট্টগ্রামের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী ১০ ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে ঢাকায় পুলিশের ‘ব্লক রেইড’, বেগম জিয়ার বাসার প্রবেশ রাস্তায় চেকপোস্ট মেসি নৈপুণ্য ও মার্টিনেজের গোল রক্ষার কৌশলে কোয়ার্টারে আর্জেন্টিনা সুন্দরগঞ্জে সড় দূর্ঘটনায় বৃদ্ধের মৃত্যু খেলা হবে এই ডিসেম্বরে বিজয়ের মাসে: ওবায়দুল কাদের জাঁকিয়ে বসবে শীত, আসছে শৈত্যপ্রবাহ; ৮ ডিগ্রিতে নামতে পারে তাপমাত্রা শেষ মুহুর্তের গোলে ব্রাজিলকে হারিয়ে চমকে দিলো ক্যামেরুন

রংপুরে যথাযথ মর্যাদায় রোকেয়া দিবস পালিত

প্রতিবেদকের নাম:
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০

বেগম রোকেয়ার ১৪০ তম জন্ম ও ৮৮ মৃত্যু বার্ষিকী পালন উপলক্ষে তার জন্মভুমি রংপুরের পায়রাবন্দে বেগম রোকেয়ার স্মৃতি স্তম্ভে পুস্প্যমাল্য অর্পণ করেন, রংপুর জেলা প্রশাসন, পুলিশ সুপার, উপজেলা প্রশাসন,বেগম রাকেয়া স্মৃতি কেন্দ্র, বেগম রোকেয়া স্মৃতি ডিগ্রি কলেজ, পায়রাবন্দ বিআরএম বালিকা বিদ্যালয়, ইউনিয়ন রিষদ,আরডিআরএস বাংলাদেশসহ রাজনৈতিক সংগঠন, ক্লাব।

 

জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও স্থানীয় মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। নারী জাগরণের অগ্রদূত মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার জীবনাদর্শ ও কর্মময় জীবনের উপর রংপুর জেলা প্রশাসক মোঃ আসিব আহসান এর সভাপতিত্বে অনলাইন ভিক্তিক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।পায়রাবন্দ সরকারী বেগম রোকেয়া কলেজ মাঠে দুপর ১২ টায় আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন,সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের প্রতি মন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি।

 

বিশেষ অতিথি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এইচএন আশিকুর রহমান এমপি,বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল­াহ সিরাজী, রংপুর পুলিশ সুপার বিপিএম (বার) বিপ্লব কুমার সরকারসহ স্থানীয়ভাবে পায়রাবন্দ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়জার রহমান, বেগম রোকেয়া স্মৃতি কেন্দ্রের উপ -পরিচালক আব্দুল্যাহ আল- ফারুক, পায়রাবন্দ সরকারি বেগম রোকেয়া স্মৃতি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আলহাজ্ব একরামুল হক,রনজিনা সাবেরা।

 

এদিকে দিবসটি পালনে বেগম রোকেয়া স্মৃতি কেন্দ্রের উপ -পরিচালক আব্দুল্যাহ আল-ফারুকের সভাপতিত্বে স্মৃতি কেন্দ্রে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, অধ্যক্ষ আলহাজ্ব একরামুল হক, রাজু আহাম্মেদ, রফিকুল ইসলাম দুলাল,মোদাব্বের হোসেন টমাস। বিগত বছরের ন্যায় ৩ দিন ব্যাপি মেলা অনুষ্ঠিত না হলেও রোকেয়া অনুরাগী মানুষের পদচারণা কম ছিলনা এবারো।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় রোকেয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য গড়ে তুলেন বেগম রোকেয়া স্মৃতি কেন্দ্র। শুধু সংঙ্গীত প্রশিক্ষণ, চিত্রাঙ্কন, পাঠাগার, অফিস চালু ছাড়া আর কিছুই নেই। স্মৃতি কেন্দ্র থেকে আলো ছড়াবার পরিবর্তে অন্ধকারের পথে। কেননা এই স্মৃতি কেন্দ্রের মাধ্যমে সেলাই প্রশিক্ষণ, রোকেয়াকে নিয়ে গবেষণা, এমফিল ডিগ্রি প্রদান করা তার কোনটি নেই পায়রাবন্দে।

কেন্দ্রের ভিতরে প্রবেশ করে সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে একটু ঘোরা ঘুরি করে রোকেয়ার ভাস্কার্যে এক নজর
চোখ বুলিয়ে নিরাস হয়ে ফিরে দর্শনার্থীরা।

১৮৮০ সালের ৯ ডিসেম্বর রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দ ইউনিয়নের খোর্দ্দমুরাদপুর গ্রামে জমিদার পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন বেগম রোকেয়া। তার বাবার নাম জহির উদ্দিন মোহারাহাতুন্নেছা সাবেরা চৌধুরাণী।
পর্দার আড়ালে থেকে শিক্ষা লাভ করেন তিনি।কম বয়সেই রোকেয়ার বিয়ে হয় খাঁন বাহাদুর সাখাওয়াত হোসেনের সাথে।১৯১০ সালের দিকে কলকাতায় চলে যান রোকেয়া। ২৮ বছর বয়সে স্বামী হারান

 

১৯৩২ সালের ৯ ডিসেম্বর কলকাতার সোদপুরে মারা যান বেগম রোকেয়া মাত্র ৫২ বছর বয়সে। সেখানেই তাকে সমাহিত করা হয়। মহিয়সী বেগম রোকেয়া তার জীবদ্দশায় নারী শিক্ষার উপর গুরুত্ব দেয়াসহ মতিচুর, সুলতানার স্বপ্ন, অর্ধাঙ্গী, অবরোধবাসিনী বই লিখেছেন। বেগম রোকেয়ার মৃত্যুর পর বেসরকারি ভাবে জন্ম ও
মৃত্যু দিবস পালন করলেও ১৯৯৪ সাল থেকে সরকারি ভাবে দিবস পালনের পাশাপাশি
৩ দিনের মেলা অনুষ্ঠিত হয় তার জন্মভুমিতে। প্রান্তবন্ত হয়ে উঠত রোকেয়ার
জন্মভুমি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!