বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে পঞ্চগড়ের নৌকাডুবির খবর পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি ট্রাজেডি: অর্ধশত মরদেহ উদ্ধার বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন : বেরোবি উপাচার্য স্বজনদের আহাজারিতে ভারি করতোয়ার পাড় পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি: দিনাজপুরের পুনর্ভব নদীতে ভেসে এলো ৮ জনের লাশ করতোয়ার পাড়ে দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি, মৃত্যু বেড়ে ৩৯ পঞ্চগড়ে মন্দিরে যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে শিশুসহ ২৪ জনের মৃত্যু হিজাব ইস্যুতে উত্তাল ইরান: নারীসহ ৭০০ বিক্ষোভকারী গ্রেফতার, নিহত ৩৫ শারদীয় দুর্গাপূজা: হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী পারাপার বেড়েছে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য, বেরোবি শিক্ষার্থী আটক

‘লাইলাতুল কদর এক হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম’

এপ্লাস অনলাইন
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২২

 

দিন শেষে সন্ধ্যা নামলেই পবিত্র ‘লাইলাতুল কদর’ শুরু। একে শবে কদরও বলা হয়। লাইলাতুল কদর মহিমান্বিত ও তাৎপর্যময় রাত। হাজার মাসের শ্রেষ্ঠ রাত। এ রাতে পবিত্র কোরআন নাজিল হয়েছিল।

আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয় আমি কোরআনকে নাজিল করেছি লাইলাতুল কদরে। লাইলাতুল কদর সম্পর্কে তুমি কী জান? লাইলাতুল কদর এক হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম।’ (সুরা কদর : ১-৩)।

লাইলাতুল কদর উম্মতে মুহাম্মাদির জন্য বিশেষ এক নেয়ামত। মহান আল্লাহ এ নেয়ামত অন্য কোনো নবীর উম্মতকে দেননি। পূর্ববর্তী নবীদের উম্মত কয়েকশ বছর জীবন লাভ করে ইবাদত-বন্দেগি করতে পারত। কিন্তু উম্মতে মুহাম্মাদির জীবন খুবই কম। আমাদের গড় আয়ু ৬০-৭০ বছর। তাই আল্লাহ তায়ালা আমাদের জন্য বিশেষ উপহার হিসেবে লাইলাতুল কদর দিয়েছেন এবং এক রাতের ইবাদতের ফজিলত এক হাজার মাসের ইবাদতের চেয়ে বেশি করে দিয়েছেন।

এ রাতে লাওহে মাহফুজে মহান আল্লাহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। সেই সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ফেরেশতারা রহমত, বরকত ও কল্যাণ নিয়ে রাতেই পৃথিবীতে অবতরণ করেন। কোরআনে বলা হয়েছে, ‘এ রাতে ফেরেশতারা ও জিব্রাঈল (আ.) অবতরণ করেন প্রত্যেক কাজের জন্য তাদের প্রতিপালকের অনুমতিক্রমে। শান্তিময়, এই রাত ফজরের উদয় পর্যন্ত।’ (সুরা কদর : ৪-৫)।

কোরআনে লাইলাতুল কদরকে হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম বলা হলেও তা কোন রাত- নির্দিষ্ট করে বলা হয়নি। তবে এর বর্ণনা রয়েছে হাদিসে। হাদিসের ভাষ্য মতে, লাইলাতুল কদর হলো রমজান মাসের শেষ দশকে। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা লাইলাতুল কদর তালাশ করবে রমজানের শেষ দশকের বেজোড় রাতে।’ (বোখারি : ২০৫৬)।

তার মানে রমজানের শেষ দশকের বেজোড় (২১, ২৩, ২৫, ২৭, ২৯ রমজান) রাতগুলোর যে কোনোটি লাইলাতুল কদর হবে। অবশ্য এ রাতগুলোর মধ্যে ২৭ রমজান (২৬ রমজান দিবাগত রাত) লাইলাতুল কদর হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এর সপক্ষে হাদিসও বর্ণিত হয়েছে।

তাবেয়ি জির ইবনে হুবাইশ (রহ.) বলেন, ‘একদিন উবাই ইবনে কাবকে জিজ্ঞাসা করলাম, আপনার ভাই আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ বলেন, যে ব্যক্তি সারাবছর রাত জেগে ইবাদত করবে, সে-ই লাইলাতুল কদর লাভ করবে। উবাই বললেন, আল্লাহ তাকে রহম করুন! তিনি এ কথার দ্বারা বোঝাচ্ছেন, মানুষ যেন এর ওপর ভরসা করে চেষ্টাহীন বসে না থাকে। অন্যথায় তিনি নিশ্চয় জানেন যে, তা রমজানে এবং রমজান মাসের শেষ দশ রাতেই এবং তা ২৭ তারিখের রাতেই।

অতঃপর উবাই দৃঢ়ভাবে শপথ করে বললেন, তা নিশ্চয় ২৭ তারিখের রাতেই। জির ইবনে হুবাইশ বলেন, আমি বললাম, হে আবু মুনজির! আপনি কোন সূত্রে তা বলেন? তিনি বললেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) আমাদেরকে যে আলামত-নিদর্শন বলেছেন সেই সূত্রে। তিনি বলেছেন, কদরের রাতের পর সকালে সূর্য উদয় হবে, কিন্তু এর কিরণ থাকবে না। (মুসলিম : ২৮৩৪)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!