শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩৮ অপরাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
রংপুরে মাদকসেবির ছুরিকাঘাতে আহত এএসআইয়ের মৃত্যু রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ভাষণে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ভারতে আইনজীবীর পোশাকে আদালতের ভিতরে গ্যাংস্টারদের গুলিবর্ষণ,চারজন নিহত দেশে কমেছে করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের হার শিক্ষার্থীদের অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় স্কুলগুলো মনিটর করা হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী ই-অরেঞ্জের ভুক্তভোগী গ্রাহকদের বিক্ষোভে লাঠিচার্জ আরও ২৩ টন ইলিশ মাছ পৌঁছেছে ভারতে করোনায় প্রাণ হারালেন অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী রোদেলা কোভিড-১৯ টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ হিসেবে ঘোষণা করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ডিসিপিইউকে’র করোন সচেতনতা মুলক ক্যাম্পেইন প্রোগ্রাম ও পথ নাটক

শিক্ষককে হত্যা করে ছয় টুকরা করে দুই সহকর্মী

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৯ আগস্ট, ২০২১

 

সাভারের আশুলিয়ায় স্কুলের মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বে অধ্যক্ষ মিন্টু চন্দ্র বর্মণকে (৩৬) শ্রেণিকক্ষে হত্যার পর লাশ ছয় টুকরো করে দুই সহকর্মী। পরে পাঁচ টুকরো কলেজের আঙিনায় পুঁতে রাখে। এরমধ্যে মাথার অংশ আশকোনার একটি ডোবায় ফেলে দেয় তারা। এ ঘটনায় তিন জনকে আটক করা হয়।

 

আটককৃতদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার (৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে আশুলিয়ার রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের আঙিনা থেকে লাশের পাঁচটি টুকরো উদ্ধার করে র‌্যাব।

 

মাথা উদ্ধারে অভিযান চলছে। এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন—মোতালেব, রবিউল ও তার ভাগিনা বাদশা।

 

র‍্যাব জানায়, করোনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভেতরে কোচিং করানো হতো।

 

মিন্টু চন্দ্র বর্মণের কোচিংয়ে শিক্ষার্থী ছিল বেশি। এ নিয়ে অন্য সহকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ ছিল। এছাড়া মালিকানা নিয়েও তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল।

রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের আঙিনা থেকে লাশের পাঁচটি টুকরো উদ্ধার করে র‌্যাব।

 

র‍্যাব আরও জানায়, গত ৭ জুলাই শ্রেণিকক্ষে বসে মিন্টুকে হত্যার পরিকল্পনা করে অন্য সহকর্মীরা। ১৩ জুলাই কোচিং শেষ হওয়ার পর রাত ১১টার দিকে তাকে ১০৬ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে হত্যার পর লাশ ছয় টুকরো করে তারা।

 

এরমধ্যে মাথার অংশটি আশকোনার একটি ডোবায় ফেলে দেয়। বাকি অংশগুলো ওই স্কুলের আঙিনায় পুঁতে রাখে। এরপর জায়গাটি সিমেন্ট-বালু দিয়ে ঢালাই করে দেওয়ার প্রস্তুতিও নেওয়া হয়েছিল।

 

এদিকে খোঁজ না পেয়ে গত ২২ জুলাই আশুলিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন মিন্টুর ভাই দীপক চন্দ্র বর্মণ। এরপর থেকেই পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাবও বিষয়টি তদন্ত শুরু করে। পরে তার সহকর্মীসহ তিন জনকে আটক করা হয়। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আজ স্কুলের আঙিনায় পুঁতে রাখা লাশের পাঁচটি টুকরো উদ্ধার করে র‍্যাব।

 

র‍্যাব-৪ কমান্ডার রাকিব মাহামুদ খান বলেন, ঘটনার পর থেকেই আত্মগোপনে চলে যায় নিহত শিক্ষকের সহকর্মীরা। এরমধ্যে রবিউল তার লোকেশন বারবার পরিবর্তন করছিল। পরে রবিবার রাতে আব্দুল্লাহপুর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এ ঘটনায় একটি মামলা করে আটকদের আশুলিয়া থানায় হস্তান্তর করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com