সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
পঞ্চগড়ে মন্দিরে যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে শিশুসহ ২৪ জনের মৃত্যু হিজাব ইস্যুতে উত্তাল ইরান: নারীসহ ৭০০ বিক্ষোভকারী গ্রেফতার, নিহত ৩৫ শারদীয় দুর্গাপূজা: হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী পারাপার বেড়েছে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য, বেরোবি শিক্ষার্থী আটক আগামী পহেলা ডিসেম্বর বিভাগীয় লেখক পরিষদ রংপুরের এক যুগ পূতি নগরজুড়ে চ্যাম্পিয়নদের ছাদ খোলা বাসে বিজয় শোভাযাত্রা খোলা বাসে বিলবোর্ড মাথায় লেগে আহত ফুটবলার ঋতুপর্ণার মাথায় দুই সেলাই এই ট্রফি আমাদের দেশের জনগণের জন্য রংপুরে জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি হত্যা: ৪ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড বহাল দিনাজপুর বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার চার বিষয়ের পরীক্ষা স্থগিত

সীতাকুণ্ডে আগুন: কাঁদছে মানুষের মন, হাসপাতালে রক্ত দেওয়ার প্রতিযোগিতা;ফেসবুকে আহাজারি

এপ্লাস অনলাইন
  • আপডেট সময় : রবিবার, ৫ জুন, ২০২২

 

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধদের রক্ত দিতে শনিবার (৪ জুন) রাতেই ছুটে যান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একটি ট্রাকে শতাধিক শিক্ষার্থী চমেক হাসপাতালে পৌঁছান। এরপর আরো শতাধিক শিক্ষার্থী দ্বিতীয় বাসে করে চট্টগ্রামে পৌঁছান রোববার (৫ জুন) সকালে।

এ তথ্য জানান চবির যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী নুর নবী রবিন। তিনি বলেন, রক্তের অভাবে মানুষের মৃত্যু হবে এটা হতে পারে না। বিস্ফোরণস্থলে আমরা না থাকলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমরা মানুষের আহাজারি দেখেছি।

এমন দুঃসময়ে আমরা রক্ত দিয়ে আহতদের সহযোগিতার উদ্দেশে ছুটে যাই। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অগ্নিদগ্ধদের মরদেহ বহনে সরাসরি সহযোগিতা করেছে।

তিনি বলেন, রক্তের জন্য আহ্বান করার সঙ্গে সঙ্গে জিরো পয়েন্টে আমরা শতাধিক শিক্ষার্থী জমা হই। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনো বাস পাইনি। এ অবস্থায় কেবল নেগেটিভ ব্লাড ডোনারদের নিয়ে ট্রাকে করে চট্টগ্রাম মেডিকেলের উদ্দেশে রওয়ানা হই আমরা। পরে সকালে আরো একটি বাসে ক্যাম্পাস থেকে শহরে গেছে।

চমেক হাসপাতালের ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগে লাইন ধরে রক্ত দান করেন অনেকে। এরমধ্যে চবির ছাত্রের সংখ্যা বেশি। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের তরুণ-তরুণীরাও রক্ত দান করেন।

এর মধ্যে গাউসিয়া কমিটির কর্মী জোনায়ে হোসেন বলেন, রক্ত প্রয়োজন শুনেই রক্ত দিতে ছুটে এলাম। রক্ত দিতে পেরে ভাল লাগছে। চবির শিক্ষার্থী রেদওয়ান হোসেন জয় বলেন, রক্ত দিয়েছি। ভাল লাগছে। রক্ত লাগলে আরো দেব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চমেক হাসপাতালে ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. তানজিলা তাবিব চৌধুরী বলেন, আমাদের যথেষ্ট পরিমাণে ব্লাড সংগ্রহ হয়েছে। কোনো রকম ব্লাড সংকট নেই। সীতাকুণ্ডে ডিপোতে অগ্নিদগ্ধ ও আহতদের চিকিৎসায় কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!