বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:১১ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে পঞ্চগড়ের নৌকাডুবির খবর পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি ট্রাজেডি: অর্ধশত মরদেহ উদ্ধার বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন : বেরোবি উপাচার্য স্বজনদের আহাজারিতে ভারি করতোয়ার পাড় পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি: দিনাজপুরের পুনর্ভব নদীতে ভেসে এলো ৮ জনের লাশ করতোয়ার পাড়ে দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি, মৃত্যু বেড়ে ৩৯ পঞ্চগড়ে মন্দিরে যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে শিশুসহ ২৪ জনের মৃত্যু হিজাব ইস্যুতে উত্তাল ইরান: নারীসহ ৭০০ বিক্ষোভকারী গ্রেফতার, নিহত ৩৫ শারদীয় দুর্গাপূজা: হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী পারাপার বেড়েছে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য, বেরোবি শিক্ষার্থী আটক

হারাগাছে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে তালা, মাঠে গর্ভবর্তী মায়ের সন্তান প্রসব

এপ্লাস অনলাইন
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১০ নভেম্বর, ২০২১

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছে অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের গর্ভবর্তী মায়েদের একমাত্র আশ্রয়স্থল হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র। এই সেবা কেন্দ্রের দেয়ালের ব্যানারে লেখা ‘মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র সপ্তাহের ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা খোলা আছে আপনার পাশে।’

 

কিন্তু মঙ্গলবার (০৯ নভেম্বর) মধ্যরাতে ঘড়ির কাটায় পনে ১২টার কিছু পরে সেবাকেন্দ্রে কেউ নেই। দরজায় তখন তালা ঝুলছিল। ঘড়ির কাটায় তখন রাত পৌনে ১২টার কিছু পর। ওই সেবা কেন্দ্রে হারাগাছ ইউনিয়নের চরনাজিরদহ মফিজপাড়া গ্রামের শাহাদত হোসেনের গর্ভবর্তী স্ত্রী লিমা বেগম নিরাপদ ও স্বাভাবিক সন্তান প্রসব করতে এসে কেন্দ্রের পাশের মাঠে থাকা নলকূপের কাছে ঘাসের উপর সন্তান প্রসব করেন।

 

লিমা বেগমের স্বামী শাহাদত হোসেন বলেন, আল্লাহর রহমতে স্ত্রী ও সন্তান বেঁচে গেছে। আর কিছু সময় পাড় হলে স্ত্রী-সন্তান দুইজনেই মারা যেত।

 

তিনি বলেন, মঙ্গলবার সন্ধায় তার স্ত্রীর সন্তান প্রসবের ব্যাথা উঠে। নিরাপদ ও স্বাভাবিক সন্তান প্রসবের জন্য মধ্যরাতে হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে স্ত্রীকে নিয়ে আসি। কিন্তুকেন্দ্রে কোন ডাক্তার ও নার্স কেউই ছিল না, কেন্দ্রের কেচি গেটে তালা ঝুলছে। প্রসবের ব্যাথায় স্ত্রী ছটফট করতে থাকে। পরে কেন্দ্রের ভবনের পাশের মাঠে ঘাসের উপর শুয়ে পড়ে মেয়ে সন্তান জন্ম দেয় । পরে রাত একটার দিকে ইজিবাইকে করে স্ত্রী ও মেয়ে সন্তন বাড়িতে নিয়ে আসি।

 

এদিকে রাতে সেবাকেন্দ্রটি তালাবদ্ধ থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা মোছা. জান্নাতুল ফেরদৌসী জানান,এখানে তিনি ও দুইজন দাই নার্স সহ তিনজন দায়িত্বে আছেন। যদিও ২৪ ঘন্টা গর্ভবতী নারীদের সেবা দেওয়ার কথা। কিন্তু তিনজনের পক্ষে ২৪ ঘন্টা সেবা দেওয়া সম্ভব না।

 

স্থানীয়রা জানায়, হারাগাছের বেশির ভাগ মানুষ শ্রমিক। তাদের পক্ষে শহরের বেসরকারি হাসপাতালে গর্ভবর্তী নারীদের চিকিৎসাসেবা নেওয়া অসম্ভব। শ্রমিক পরিবারের গর্ভবর্তী নারীদের একমাত্র নিরাপদ ও স্বাভাবিক সন্তান প্রসবের আশ্রয়স্থল হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র। কিন্তু মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে অনেক গর্ভবর্তী নারীরা সেবা পায় না। দীর্ঘদিন ধরে রাতেই বেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এখানে যারা দায়িত্বে রয়েছেন তারাও ঠিকভাবে সেবা প্রদান করেন না।

 

এ বিষয়ে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সহিদুল ইসলাম বলেন, তিনি প্রায় দুই মাস আগে এ উপজেলায় যোগদান করছেন। তিনি যোগদানের পরেই হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকার ব্যাপারে অভিযোগ জানতে পেরেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!