সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ন
নিউজ ফ্লাশ
মেহেদি ম্যাজিকে বাংলাদেশের রুদ্ধশ্বাস জয় ”আর্জেন্টিনার সমর্থকরা পতাকার চুরির মিথ্যা অভিযোগে আমাকে পিটিয়েছে” নকল ধরা পড়ায় তৃতীয় তলা থেকে লাফিয়ে ছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা ভোট চুরি করে খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসেছিলেন: চট্টগ্রামের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী ১০ ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে ঢাকায় পুলিশের ‘ব্লক রেইড’, বেগম জিয়ার বাসার প্রবেশ রাস্তায় চেকপোস্ট মেসি নৈপুণ্য ও মার্টিনেজের গোল রক্ষার কৌশলে কোয়ার্টারে আর্জেন্টিনা সুন্দরগঞ্জে সড় দূর্ঘটনায় বৃদ্ধের মৃত্যু খেলা হবে এই ডিসেম্বরে বিজয়ের মাসে: ওবায়দুল কাদের জাঁকিয়ে বসবে শীত, আসছে শৈত্যপ্রবাহ; ৮ ডিগ্রিতে নামতে পারে তাপমাত্রা শেষ মুহুর্তের গোলে ব্রাজিলকে হারিয়ে চমকে দিলো ক্যামেরুন

হেফাজতের হরতালে তাণ্ডবের ঘটনায় ৬ মামলা, আসামি ৩ হাজার

প্রতিবেদকের নাম:
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ, ২০২১
????????????????????????????????????

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গত ২৮ মার্চ হেফাজতের হরতাল চলাকালে নাশকতার ঘটনায় পৃথক ছয়টি মামলা হয়েছে। সোমবার (২৯ মার্চ) রাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় পুলিশ বাদী হয়ে পাঁচটি এবং র‌্যাব বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করে। এ ৬ মামলায় প্রায় ৩ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে।

প্রত্যেক মামলায় ২৫ থেকে ৩০ জনকে আসামি এবং অজ্ঞাত আরও ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) সকালে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান।

তিনি জানান, সোমবার রাতে মামলাগুলো রেকর্ড করা হয়েছে। র‌্যাব ও পুলিশের পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে নাশকতার অভিযোগে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে। অপর একটি মামলা হয়েছে সরকারি কাজে বাধা দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা ও আহত করার অভিযোগে।

ওসি আরো জানান, এই ছয় মামলায় এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে র‌্যাব-পুলিশের কয়েকটি টিম নাশকতা সৃষ্টিকারীদের শনাক্ত করে গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে। তাদের সকলকে আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ হেফাজতের ডাকা হরতালে স্বাভাবিক ছিল নারায়ণগঞ্জ শহর ও উপজেলা এলাকাগুলো। তবে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে সাইনবোর্ড পর্যন্ত ছিল এলাকা ছিল হরতাল সমর্থকদের দখলে। তারা এই মহাসড়কে তাণ্ডব চালিয়ে রণক্ষেত্রে পরিণত করে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে প্রায় ১৮টি যানবাহনে আগুন দেয়। নির্বিচারে চলে ভাঙচুর। দফায় দফায় বিজিবি-পুলিশের সাথে সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এতে পুলিশ-সাংবাদিকসহ আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক ব্যক্তি। সকাল-সন্ধ্যা হরতালের পুরো সময় জুড়ে সাংবাদিকদের ওপর চড়াও ছিল পিকেটাররা। তারা অন্তত ১২ জন সাংবাদিককে মারধর ও দুইটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের গাড়ি ভাঙচুর করেছে। মহাসড়কটি ভোর ছয়টা থেকে সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত আটটা পর্যন্ত ছিল হরতাল সমর্থকদের দখলে।

জেলা পুলিশের তথ্যমতে, এই সময়ের মধ্যে ১৮টি ট্রাক, বাস, কাভার্ডভ্যানে আগুন, নির্বিচারে যানবাহনে ভাঙচুর, সাংবাদিকদের মারধর করেছে হেফাজতের পিকেটাররা। এই সহিংস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে শর্ট গানের রাবার বুলেট ও চায়নিজ রাইফেলের প্রায় ৪ হাজার রাউন্ড গুলি ছুঁড়তে হয়েছে পুলিশ ও বিজিবিসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থাকে। পিকেটারদের ছত্রভঙ্গ করতে প্রায় দেড়শ’ টিয়ার শেলও নিক্ষেপ করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ

এ প্লাস ডিজিকম সার্ভিস

© All rights reserved © 2020 Aplusnews.Live
Design & Development BY Hostitbd.Com

অনুমতি ছাড়া নিউজ কপি দন্ডনীয় অপরাধ। কপি করা যাবে না!!